Audio Story NewsFeatured

এবার একসাথে Anirban Bhattacharya এবং Sayak Aman – Midnight Horror Station

ফের সাইকোলজিকাল (Psychological) ছবিতে অভিনয় করছেন অভিনেতা অনির্বাণ ভট্টাচার্য (Anirban Bhattacharya)। এসভিএফ (SVF)-র ব্যানারে তৈরি এই ছবির ট্রেলার কিছুদিন আগেই সামনে এসেছে এবং আরও জানান Midnight Horror Station থেকে Sayak Aman এর সাথে একটি গল্পেও একসাথে কাজ করছেন তারা।

নিজের ইমেজ থেকে বেড়িয়ে কিছুটা অন্যরকম চরিত্র বর্তমানে বেছে নিচ্ছেন অনির্বাণ ভট্টাচার্য। এই ছবিতে কতটা আলাদা রূপে দর্শকরা পাবেন তাঁকে? অভিনেতা জানালেন, “এর আগে আমি যে ধরণের কাজ করেছি তার মধ্যে, ‘ব্যোমকেশ’ বা ‘ফেলুদা’-র মতো সমস্ত চরিত্রগুলিতে ‘লার্জার দ্যান লাইফ’ বা সুপার হিরোয়িক যে এলিমেন্টগুলো রয়েছে, সেটা ছেড়ে একজন সাধারণ মানুষের মধ্য থেকে অসাধারণ কিছু তুলে ধরা, এই জিনিসটা একটা নতুন লেয়ার তো বটেই একটা নতুন চরিত্র হিসাবেও। তাই ভাল লেগেছে কাজটা করতে।”তিনি যোগ করলেন, “তবে এর আগে করা ‘বিবাহ অভিযানে’ চরিত্রটা যতটা ভেঙেছিল, এই ছবিতে যে ততটা ভাঙছে তা কিন্তু নয়। বরং আমি বলবো একটা সিরিয়াস ছবিতে, একটা সিরিয়াস চরিত্র এটা। যার মধ্যে নতুনত্ব আছে, সে বিষয়ে সন্দেহ নেই। গোয়েন্দা না হয়েও এই ছবিতে আমার কাজ গোয়েন্দাগিরি।”

গত কয়েক বছর ধরে বাংলা ছবি কিংবা ওয়েব সিরিজে ডার্ক ঘরানার গল্পের ট্রেন্ড অনেকটাই বেশি। সেই প্রসঙ্গে অনির্বাণ বললেন, “এখন মানুষ এই ধরণের কাজ দেখতে পছন্দ করছে। বিশেষত ওয়েব প্ল্যাটফর্ম এসে এই প্রবণতা অনেকটা বাড়িয়ে দিয়েছে। একটা ক্যাট অ্যান্ড মাউস, খুনের রহস্য বা একজন আরেকজনকে ধরতে চাইছে, এই ধরণের গল্পের ক্ষিদের জন্য ওয়েব কনটেন্ট অনেকটাই দায়ি বলে আমার মনে হয়। যদিও বাংলা ছবিতে অনেক ভাল ভাল থ্রিলার হয়েছে, তবুও সেই ট্রেন্ডটা এখনও আছে।”

এই সিনেমার প্রসঙ্গেই আরও জানা যায়, bengali audio story channel – Midnight Horror Station এর সাথে একসঙ্গে সিনেমার promotion এর জন্য কাজ করছেন তারা। তবে এই গল্পটি  Sayak Aman এর লেখা।

***আমাদের এই গল্পটি সব ধরনের শ্রোতাদের জন্য নয়, গল্পের প্রথমে কিছু নৃশংস ও বীভত্স দৃশ্যের বর্ণনা রয়েছে। এ ধরনের বর্ণনা যদি আপনাকে মানসিক ভাবে আহত করে তবে গল্পটি শোনা থেকে বিরত থাকতে অনুরোধ করব। *** @SVF এর নতুন সিনেমা “মুখোশ, আড়ালে অন্ধকার” মুক্তি পাচ্ছে উনিশে অগাস্ট। অভিনেতা অনির্বাণ ভট্টাচার্য্য কে আন্তরিক ধন্যবাদ আমাদের পাশে থাকার জন্য।  

বৃষ্টির রাতে বাড়ি ফিরতে গিয়ে রাস্তায় আটকে পড়ে সায়ন। এই অবস্থায় এক অজ্ঞাত পরিচয় ব্যক্তি যেচে পড়েই লিফট দেন তাকে। পথে যেতে যেতে এক অদ্ভুত মুখোশের গল্প বলতে শুরু করেন ভদ্রলোক। এক নৃশংস কিন্তু রহস্যে ঘেরা অতীতের উপাখ্যান। সত্যি কি এমন বিচিত্র মুখোশ বানানো সম্ভব? এখন কোথায় সেই মুখোশ? কী হয় তা দিয়ে? এবং সব থেকে বড় কথা – কী উদ্দেশ্য এই মানুষটির? সায়ক আমানের কাহিনী – নকল মুখ।

কাহিনী - সায়ক আমান 
পাঠে - সায়ক আমান 
অজ্ঞাত লোক - অনির্বাণ ভট্টাচার্য 
বাবা - রণদীপ
মা - সায়নী 
সায়ন - সায়ক 
দম্পতি ১ - অন্বেষ 
দম্পতি ২ - সোমদত্তা 
আবহ সঙ্গীত ও স্পেশাল এফেক্ট - ম্যাক্স 
পোস্টার ডিজাইন - কভারম্যান অভিব্রত 
লালনের গান - মৌমিতা রুইদাস 
Special Thanks to @Eso Golpo Kori For their Support 

What's your reaction?

Excited
1
Happy
0
In Love
0
Not Sure
0
Silly
0

You may also like

Leave a reply

Your email address will not be published. Required fields are marked *

5 × one =